বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়ের দুটি কবিতা

 

কুয়াশা

বিঁধেছে মাছের চোখ একজনের তির

পাঁচজন কীভাবে পেল তোমার শরীর?

শরীরের মধ্যে যদি থেকে থাকে মন

কতক্ষণ ঘুম তার কত জাগরণ?

 

সে কি চুপ করে থাকে? তারও আছে ভাষা?

ভোররাতে ঘুম ভেঙে গেলে যা কুয়াশা

আরেকটু সকাল হলে পরে তাই আলো

পাখিসব করে রব তোমাকে ঠকাল

 

তোমাকে ঠকাল বলে তুমি গেলে ঠকে

জাগালে খরার দেশ বৃষ্টির পুলকে

সাজালে নিজের চিতা কাঠপেনসিলে

মুখাগ্নির আগে কিছু বলতে চেয়েছিলে?

 

পঙ্গপাল

রাস্তায় দিয়েছি ধর্না

তোমাকে খেয়েছি পর্ণা

তাই তুমি হয়েছ রেশম

 

অন্ধের দু-দুটো চোখ

যতখানি ভদ্রলোক

আমি তার চাইতে কিছু কম

 

কাবাবে গেঁথেছি শিক

থেকে গেছি আন্তরিক

সিগারেটে মিশিয়েছি সোনা

 

আমাকে মার্জনা করো

শেষ পৃষ্ঠা থেকে পড়ো

প্রথমেই বাতিল কোরো না

 

নেই যার গতকাল

আমি সেই পঙ্গপাল

আগুন তো আমাকে ছাড়েনি

 

তোমার দুর্জয় ঘাটি

রক্তে ভিজিয়েছে মাটি

জলে কেন ভেজাবে না বেণী?

 

 
 
top