রাজদীপ রায়ের কবিতা

 

পূর্ণ

তোমার নাভির কাছে পাশ ফিরে শুলে

আমি বেশ বুঝতে পারি

 

এখন পৃথিবী শান্ত; প্রতিটি গোয়ালঘরে দুধের সৌরভ

                মধু হয়ে ঝরে পড়ছে খড়ে

 

শ্রমিক

সব নদী হাসিমুখে

বয়ে বয়ে বেড়ায় আগুন

 

ঘরে না-ফেরার কষ্ট

 

ভ্রূণ

এত রক্তধারা বয় কেন?

তোমাকে চিনতেই পারি না

 

সবুজ দুধের মতো আকাশ

               তোমাকে ঢেলে দিই—

 

গলায় গভীরটুকু ছেঁকে

শুধুমাত্র সর বুকে ধ’রে

 

এসো, বেপরোয়া নিমন্ত্রণ

হাতে

 

তোমার শরীর থেকে

চিঠি হয়ে বেরিয়েছি রাতে

 

প্রজাপতি

বাতাসে পুড়িয়ে দেওয়া রোদ

                    তোমার শরীরে, তাই

এত গা গরম,

এত সূর্যোদয়

 

অনর্গল বৃষ্টি ঝরে পড়ছে

আর হাত দু-খানি থেকে

 

কীরকম ডানাবেরোচ্ছে ভোরের

 

হেলানো সাইকেল দুটি

আকাশে তাকিয়েনিরুপায়

 
 
top