হোমরাসের রচনা থেকে প্রকাশিত কল্পনা

 

আমার মনে হল হাসোরে আমাদের মৃত মানুষদের একটি গ্রন্থ আবিষ্কৃত হয়েছে, যারা এর গুরুত্ব সম্বন্ধে আলপিনি ভাষাকে বেছে নিয়েছিলো। আমার মনে হল, ঐতিহাসিকরা একে পৃথিবীর প্রথম ইতিহাস বলে অভিমত প্রকাশ করেছেন, এবং এটা হোমরাসের লেখা বলে তাদের দাবী, যার একাধিক রচনা থেকে গুসকরার গল্পটি আমার মনে হল রহস্যময়, কারণ সে খুন হয়ে যাবার পর, তার অস্তিত্ব নিয়ে কেউ মাথা ঘামায়নি, কারণ সে ছিল মৃত এবং তাকে প্রায় হাসোরের ঐতিহ্যের গোপন পানশালায় দেখা যেতো। কেউ তাকে কোনোদিন সেই খুনের বিষয়ে প্রশ্ন করেনি; এখন প্রশ্ন, সমস্যাটা যে বিশেষ আকর্ষণের বিষয়বস্তু, সে ব্যাপারে হোমরাসের কী প্রতিক্রিয়া ছিল?

আমার মনে হয়, বেয়ার্ড এটা ভেবেছিল তার বীরত্বে এমনকিছু ঘটনার প্রস্তাব ছিল, যা হোমরাসকে আকর্ষণ করেছিল, যেটা সে কল্পনা থেকে মৃত্যুর পরে যা ঘটছে তা বর্ণনা করতে গিয়ে ম্যাজিকের সাহায্য নিয়েছিল; বা এটা সে কোনোদিনই ভাবেনি। তার মৃত্যুই তার রচনায় প্রতিফলিত হয়েছিল, কারণ অদ্ভুত জগতের মধ্যে সে নিজেকে আলাদা করতে পারেনা; যে কোনো অলৌকিক ঘটনার প্রস্তাবকে, মৃত্যু এই শব্দে খন্ডন করতে পারেনা। এটা সে সমাধান রূপে গল্পটি বলতে চায়নি, বরং এর আদিম ধারণাগুলো সেই গোলোকধামে, স্বপ্নের মতো উজ্জ্বল ও অলঙ্করণপ্রাপ্ত। প্রচলিত ধারণার জন্য সে নিজেকে নরকের থেকে পৃথক কোনো সত্তা ভাবতে পারেনি, তিনি হয়তো এসব আবহ যে পূর্ববর্তী ধারণার সাথে মিলিয়ে দিতে চেয়েছেন; তার চরিত্রটি যে মৃত্যু থেকে পৃথক কোনো সত্তা, যা তার রচনাগুলোকে বিশিষ্টতা প্রদান করেছে, সে বিষয়ে তার স্পষ্ট উত্তর একটিই, গোলোকধামের বাইরে এর কোনো সত্তা, পাগলামির ঘোরে মৃত্যুকে জলের সাথে মিশিয়ে দেবার প্রয়োজন বোধ করেনা। কারণ তারা জানে এর আদিম ধারণা এমন কোনো অলৌকিক ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত নয়, যা মানুষকে বিচলিত করতে পারে।

এটা আবার অন্য প্রসঙ্গে বলা যেতে পারে, যদিও তা প্রাচীন গ্রন্থ থেকে সম্পূর্ণ ভিন্ন, এবং আমাদের সম্পর্কে যা যা ঘটবে, সেটা সেই হোমাসের কথা নয়; সেও এক অন্য সত্তা, যাকে প্রমাণ করা উদ্ভট চিন্তাধারা থেকে পৃথক কোনো যাদুবিদ্যা; কারণ হোমাস কোনোদিন তার সংকেত এভাবে বলে যেতে পারেনি। সে কল্পনা করেছিলো, তার মৃতদেহটি একটি মায়াবী সমুদ্রে ভাসানো, যেমন তার রচনাগুলো একে অপরের থেকে সময় অতলস্পর্শ, গোলকধাঁধা নির্মাণ; তার মৃত্যুচেতনা সেরকমই একটা ইতিহাস।

 

 
 
top